শরীরে যা কিছু সমস্যা, দূর করতে শুধু ওষুধ খেতে হবে এমন তো কথা নেই। বিভিন্ন রকম ফল খেয়েও প্রাকৃতিক ভাবেই শরীর ভালো রাখা যায়। কাঁচা আম তেমনই এক ফল।  

১। ওজন কমায়


খেতে ভালবাসে, আর খেতে খেতেই মুটিয়ে গেছে এমন মানুষ চারপাশে প্রচুর। তাদের সংখ্যাও কিন্তু ক্রমশ বাড়ছে। এই মানুষগুলোর জন্য ওজন কমাতে কাঁচা আম এক দারুণ ফর্মুলা। অন্যান্য ফল থেকে কাঁচা আম বেশি কার্যকর, এমনকি পাকা আম থেকেও। কেননা পাকা আমে চিনি বেশি থাকে যা ওজন বাড়িয়ে দিতে পারে।

২।  ত্বক ভালো রাখে

এই গরমে আলাদা করে ত্বকের যত্ন নেওয়া দরকার। নইলে হঠাৎ করেই একদিন আয়নার দেখবেন সেই জেল্লা যেন কোথায় মিইয়ে যাচ্ছে। সব সময় সেভাবে খেয়াল রাখাও হয়ে ওঠেনা। এই মৌসুমে আপনার সেই মুশকিল আসান করতে রয়েছে কাঁচা আম। ত্বক ভাল রাখতে কাঁচা আম খান।

৩।  ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য

ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য কাঁচা আম যেন আশীর্বাদ। ডায়াবেটিস কমাতে কত চিন্তা, কত চেষ্টা অথচ কাঁচা আম কিন্তু কাজটা একেবারে সহজ করে দেয়। শরীরের চিনি কমিয়ে দেয়। ডায়াবেটিক রোগীরা ভাতের সাথে কাঁচা আম খেতে পারেন। এতে ডায়াবেটিসটা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

৪। দাঁত ভালো রাখে

দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা আসলে অনেকেই দিইনা। সকাল বেলা একবার দাঁত মাজা ছাড়াও আরও কিছু করার থাকে যার প্রায় কিছুই আমরা করিনা। একটা কাজ অবশ্য আনায়াসেই করা যায়। একটু কাঁচা আম খাওয়া। কাঁচা আম মাড়ির জন্য খুব ভালো। দাঁতের মাড়ি থেকে রক্ত পড়া বন্ধ করতে, দাঁতের ক্ষয়রোধ করতে কাঁচা আম উপকারী।

কাঁচা আমের এসকল গুন যদি আপনাকে ভালো থাকতে সাহায্য করে তবে বাকিদেরও জানিয়ে দিন। আর অবশ্যই ফেইসবুকে #mytonic লিখে শেয়ার করুন।

   
tonicadmin's picture
লিখেছেন
টনিক
Tonic is there to assist you no matter how big or small your problems may be