মিষ্টির ৭টি বিকল্প

মিষ্টি এক অদ্ভুত জিনিস। মন খারাপ হলেও খেতে ইচ্ছা করে। মন ভাল হলে লোককে খাইয়ে ভাল লাগে। মিষ্টিমুখ করার ব্যাপারটা একরকম সামাজিক আচার বলা চলে। তবে কি কেউ কেউ মিষ্টি একটু বেশিই ভালবাসি। আর মন খারাপ হলে মিষ্টি বুঝি একটু বেশিই মিঠা লাগে। কিন্তু সাহস করে আর খাওয়া যায়না বেশি। ওজন বেড়ে যাবে যে!

১। চকলেটের বদলে ডার্ক চকলেটে আবৃত স্ট্রবেরি

চকলেট খেতে ইচ্ছে করছে? তাজা স্ট্রবেরি গলানো ডার্ক চকলেটে ডুবিয়ে সোজা মুখে পুরে দিন। চকলেটের স্বাদও পেলেন, চিনিও কম খাওয়া হলো।

বেশিরভাবে চকলেটেই থাকে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট এবং চিনি। ডার্ক চকলেটে চিনি ও ফ্যাটের বদলে কোকোর পরিমাণ বেশি থাকে। ফলে এটি সাধারণ চকলেটের চেয়ে বেশি স্বাস্থ্যকর। ৫০-৭০ শতাংশ কোকোযুক্ত চকলেট শরীরের জন্য বেশ ভালো।

২। ললির বদলে হিমায়িত আঙুর

গরমে ঠাণ্ডা ও রসালো ললি খেতে কার না ভালো লাগে! কিন্তু মজাদার ললিগুলোতে চিনি ছাড়া আর কিছুই থাকে না। ললির বদলে ফ্রিজে ভরে রাখুন আঙুর। ফ্রোজেন আঙুর খেতে যেমন মজা, তেমনি আপনার শরীর পাবে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন, মিনারেল এবং ফাইবার।

৩। চকলেট বিস্কুটের বদলে ওট স্লাইস

বাণিজ্যিকভাবে তৈরি চকলেট বিস্কুটগুলোতে থাকে প্রচুর মাখন, পাম অয়েল এবং লবন। যদি চকলেট বিস্কুট খাওয়ার ইচ্ছেটা অদম্য হয়, তাহলে নিজেই ঘরে বানিয়ে নিতে পারেন বিশেষ ওট স্লাইস।

এই বিস্কুট বানাতে লাগবে ওট, বাদাম, কিশমিশ, খেজুর, মার্জারিন, অলিভ অয়েল এবং মধু। সবগুলো উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে মণ্ড তৈরি করুন। এবার ছোট ছোট ভাগে ভাগ করে নিন বিস্কুটের মত। খেতে পারেন চা কিংবা কফির সঙ্গে। তবে মনে রাখবেন, এটিও এক প্রকার মিষ্টি। তাই বেশি খাওয়া চলবে না!  

৪। লজেঞ্জের বদলে খেতে পারেন খেজুর

কাজের ফাঁকে অনেকেই লজেঞ্জ খেতে পছন্দ করেন। শরীরে শর্করার অভাব দূর করে শক্তি যোগাতেও কাজ করে লজেঞ্জ কিংবা ললিপপ। লজেন্সের স্বাস্থ্যকর বিকল্প হতে পারে খেজুর। খেজুর শুধু শক্তিই বাড়ায় না, শরীরে পুষ্টিও যোগায়। প্রাকৃতিকভাবে মিষ্টি এই ফলে রয়েছে আঁশও। দুটো খেজুরে আস্ত একটি ফলের সমান পুষ্টি থাকে।

৫. মাফিনের বদলে কিশমিশ দেয়া পাউরুটি

শহুরে বেকারিগুলোতে মাফিন বেশ জনপ্রিয়। স্বাদে অনন্য হলেও এই মাফিনগুলোতে চিনির পরিমাণ থাকে প্রায় ১৫ চা চামচ!  যদি এই ধরনের মিষ্টি খাবার খেতে খুব ইচ্ছা করে, তাহলে খেতে পারেন এক টুকরো কিশমিশযুক্ত রুটি।

৬। হট চকলেটের বদলে গরম দুধ

হট চকলেট খাওয়ার প্রচলন আমাদের দেশে বলা যায় নতুন, তবে চকলেটপ্রেমীদের মাঝে এর জনপ্রিয়তা বাড়ছে দ্রুত। রেস্তোরাঁয় গিয়ে কালেভদ্রে খাওয়া যেতে পারে হট চকলেট, তবে যদি তা অভ্যাসে পরিণত হয়, তাহলে খুঁজতে হবে বিকল্প। 

দুধের ওপর থেকে সরটুকু সরিয়ে খানিকটা দারচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে দিন। মজাদার এই পানীয়তে নেই বাড়তি চিনি, তাই খেতে পারেন নিশ্চিন্তে।

৭। আইসক্রিম বা প্যাকেটজাত দইয়ের বদলে কলা

অনেকেই আইসক্রিমের ফ্যাট এড়ানোর জন্য প্যাকেটজাত দই খেয়ে থাকেন। তবে বাজারে যেসব প্যাকেটজাত দই পাওয়া যায়, তাতে আইসক্রিমের চাইতে কম চিনি থাকে তা কিন্তু নয়।

তাহলে উপায়? কয়েকটি পাকা কলা নিন, একটু দারচিনি গুঁড়া ছিটিয়ে দিয়ে ব্লেন্ডারে ভাল মতো ব্লেন্ড করুন। চাইলে লো ফ্যাট দুধও দিতে পারেন খানিকটা। তিনটি উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ড করার পর পেয়ে যাবেন প্রাকৃতিক আইসক্রিম। যা এই গরমের সময়টাতে আইসক্রিম কিংবা প্যাকেটজাত দইয়ের বদলে খেতে পারেন নিশ্চিন্তে।

১১৪৭ বার পড়া হয়েছে মে ১৪, ২০১৬


১১৪৭ বার পড়া হয়েছে


tonicadmin's picture

লিখেছেন টনিক

ভালো থাকতে ছোট বড় সব চেষ্টায় আপনার পাশে আছি আমরা। টনিক।

সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন

উত্তর দেখুন
 
লোডিং...

টনিক ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন

আজই টনিকের সকল সাধারণ ফিচার উপভোগ করুন

আপনার গ্রামীণফোন নাম্বারটি প্রদান করুন

০১৭ -

Top