রান্না যখন একজনের

ড্যানিয়েল কোলি

কারো কারো শুধু নিজের জন্য রান্না করতে ভালই লাগে। কিন্তু যারা কেবল একা থাকেন, প্রতিদিনের রান্নার বিষয়টি তাদের একাকীত্বের বোধকে যেন আরো বাড়িয়ে তোলে।

পড়াশোনা কিংবা জীবিকার জন্য বাড়ি ছেড়ে নতুন শহরে থাকা, সঙ্গীর সঙ্গে বিচ্ছেদ কিংবা সঙ্গীর মৃত্যু—জীবনে একা হয়ে যেতে হয় নানা কারণেই। তখন পেটের তাগিদে নিজের রান্নাটা নিজেই করে খেতে হয়। জীবনে যত সমস্যাই আসুক, সুষম খাবার খাওয়া জরুরি। কারণ ভাল খাবার আপনাকে সুস্থ রাখে।

অস্ট্রেলিয়ার পুষ্টিবিদ রোজালিন ডি অ্যাঞ্জেলো বলেন, "ভাল খাবার আপনার শক্তির পরিমাণ বাড়িয়ে তুলবে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অটুট রাখবে এবং মানসিক তীক্ষ্ণতাও ধরে রাখবে। স্বাস্থ্যকর খাবার মানুষকে স্বাস্থ্যকর ওজন ধরে রাখতেও সাহায্য করে, ফলে দীর্ঘমেয়াদী রোগ যেমন ডায়াবেটিস কিংবা হৃদরোগের ঝুঁকি কমে যায়, হাড়ের ওপরও চাপ কম পড়ে।”

তিনি আরো বলেন, "গবেষণায় দেখা গেছে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যকেও ভাল রাখে।"

একা থাকলে পুষ্টিহীনতার সম্ভাবনা আরো বেড়ে যায়। কারণ তখন বাইরে খাওয়া হয় বেশি, প্রতিবেলার খাবারের মধ্যের বিরতি বেড়ে যায় এবং খাবারে তেমন বৈচিত্র্যও থাকে না।

রোজালিন বলেন, "মানুষ যখন একা থাকে, তখন খাওয়ার প্রতি আগ্রহ আগের মতো থাকে না। এর ফলে তারা প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাচ্ছেন কী না তা নিশ্চিত করা কঠিন হয়ে পড়ে। এজন্য প্রতিবেলা সবটুকু খাওয়া প্রয়োজন, সব সময় পুষ্টিকর খাবারটি বেছে নেয়া উচিৎ, চিপস-চকলেটের মতো খাবার যেগুলোতে পুষ্টি কম থাকে সেগুলো কম খাওয়াই ভাল।"

"এসব খাবার মাঝে মাঝে মজা করে খাওয়া যেতেই পারে, তবে খাবারের ক্ষেত্রে গুরুত্ব দিতে হবে পুষ্টিকে, যেমন দুগ্ধজাত খাবার, মাছ, চর্বি ছাড়া মাংস, হোলগ্রেইন রুটি, শাকসবজি-ফলমূল, শস্য জাতীয় খাবার, বাদাম ইত্যাদি।"

শুধুমাত্র নিজের উদর পূর্তির জন্য বাজার ঘুরে ঘুরে খাবার কেনাকে সময় নষ্ট মনে হতে পারে অনেকেরই। কিন্তু খাবার নির্বাচনে অবহেলা হতে পারে অনেক বড় সমস্যার কারণ।

বাজার করার ক্ষেত্রে সামান্য কিছু পরিকল্পনা আপনাকে অনেকটাই সাহায্য করতে পারে। এদিকে বেশি করে রেঁধে ফ্রিজে রেখে দিয়ে তা অল্প অল্প করে খেয়ে নিলে প্রতিবার রান্নার ঝামেলা থেকেও বাঁচা যায়। স্যুপ জাতীর খাবার এক্ষেত্রে হতে পারে আদর্শ।

যেসব খাবার ১৫ মিনিটের মধ্যেই রান্না করা যায়, এরপর রেখে রেখে খাওয়া যায় এমন কিছু রান্না শিখে নিলে কিন্তু মন্দ হয় না! আলু ভর্তা, ডিম তো নিয়মিত খাচ্ছেনই, এবার নতুন কিছু চেষ্টা করেই দেখুন।

এবার থাকছে নিঃসঙ্গ রাঁধুনিদের জন্য ভিন্ন ধরনের কিছু রেসিপি। আগামীবার বাজার করার সময় এই খাবারগুলো আনতে ভুলবেন না যেন।

টুনা-হার্ব সালাদ

এক টিন টুনা মাছের সঙ্গে টমেটো কুচি, ধনেপাতা কুচি মিশিয়ে সঙ্গে দিন সেদ্ধ শিমের বিচি। ব্যস হয়ে গেলো টুনা-হার্ব সালাদ। পেট ভরার জন্য সঙ্গে যোগ করতে পারেন সেদ্ধ করা পাস্তা।

মুরগির রোস্ট কিংবা বারবিকিউ

আজকাল সুপার শপগুলোতে মশলা মাখিয়ে রোস্ট কিংবা বারবিকিউ করার জন্য প্রস্তুত মুরগির মাংস পাওয়া যায়। প্যাকেটে লেখা নিয়ম অনুযায়ী রেঁধে ফেলতে পারেন চটজলদি। রুটি বা চাপাতির ভেতর মাংসের টুকরোর সঙ্গে নিন একটু সালাদ এবং পছন্দের কোনো চাটনি।

এছাড়াও মুরগির মাংস সেদ্ধ করে নিতে পারেন। সঙ্গে দিন চিকেন স্টক, আদা কুচি, কনর্ ফ্লাওয়ার এবং পছন্দের কোনো সবজি (পেঁপে, গাজর কিংবা কোনো শাক)। সেদ্ধ করা নুডুলসের সঙ্গে মিশিয়ে নিন।

ইতালিয়ান মিনেস্ট্রোনি স্যুপ

শাকসবজি এবং আঁশে ভরপুর এই স্যুপ থেকে পাবেন প্রয়োজনীয় পুষ্টি। ফ্রিজে রেখে খাওয়ার জন্য খুবই ভাল এই স্যুপ।

ভুট্টা দিয়ে মাংসের স্যুপ

আরেকটি মজাদার স্যুপ যা খেতে হবে দারুণ, তৈরিতেও বেশি সময় নেবে না। আঁশে ভরপুর পুষ্টিকর এই স্যুপও সহজেই ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যায়।

ক্রিসপি চিকেন স্ট্রিপস

মুরগির বুকের মাংস পাতলা করে কেটে ডিমে ডুবিয়ে ওটসে গড়িয়ে হালকা করে ভেজে নিন ননস্টিকি ফ্রাইপ্যানে। সঙ্গে নিন খানিকটা সালাদ কিংবা পছন্দের কোনো সবজি। মাত্র ১০ মিনিটে তৈরি হয়ে যাওয়া এই খাবারটি ফ্রিজে রেখেও খেতে পারবেন।

৭৪২ বার পড়া হয়েছে আগস্ট ১২, ২০১৬


৭৪২ বার পড়া হয়েছে


tonicadmin's picture

লিখেছেন টনিক

ভালো থাকতে ছোট বড় সব চেষ্টায় আপনার পাশে আছি আমরা। টনিক।

সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন

আমার উচ্চতা 5ফিট 7 ইন্চি আমার শরীরের ওজন 50 কেজি এই ওজন কি আমার শরীরের জন্য ঠিক আছে কি ?আর আমি ওজ... উত্তর দেখুন

star

Answered 23 hours ago by

Dr. Qamrun Ahmed MAkbool

Topic: Nutrition

Badam ki ogon barai. Please bolun. উত্তর দেখুন

star

Answered 2 days ago by

Dr. Qamrun Ahmed MAkbool

Topic: Nutrition

Badam ki ogon barai. Please bolun. উত্তর দেখুন

star

Answered 2 days ago by

Dr. Dilara Maqbool

Topic: Nutrition

টনিক ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন

আজই টনিকের সকল সাধারণ ফিচার উপভোগ করুন

আপনার গ্রামীণফোন নাম্বারটি প্রদান করুন

০১৭ -

Top