খাবারে লাগাম না টেনেই সুস্বাস্থ্য

ব্যস্ততার কারণে ব্যায়াম করার সময় না পেলেও খাবার বেলায় লাগাম আমরা কম-বেশি সবাই টানি। কিন্তু কিছু বিশেষ খাবার খাওয়া বাদ দিলেই কি ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে?

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ওজন কমানো নয় বরং সুস্থ থাকাই হওয়া উচিৎ খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের  মূল উদ্দেশ্য। এমনও দেখা গেছে, ওজন কমানোর উদ্দেশ্যে ডায়েট অনুসরণ করতে গিয়ে ওজন বাড়িয়ে ফেলেছেন কেউ কেউ।

ডায়েটে না গিয়ে কি করবো?

এটা খাওয়া যাবে না, ওটা খাওয়া বন্ধ—এমন করতে গেলে ঐ নিষিদ্ধ খাবারের প্রতি আগ্রহ যেন আরো বেড়ে যায়। ডায়েটে যাওয়ার পর এ অভিজ্ঞতা হয়নি এমন লোক খুঁজে পাওয়া ভার।

শুধু শুধু নিজের মন এবং শরীরকে কষ্ট না দিয়ে ডায়েটের বদলে এই বিষয়গুলোর ওপর নজর দিন:

মন দিয়ে খান    

খাওয়ার সময় অন্য কোনো কাজ নয়, সম্পূর্ণ মনোযোগ দিন খাবারেই। খান ধীরে সুস্থে, তাহলে খুব সহজেই আপনি বুঝতে পারবেন পেট ভরেছে কী না। অনেক সময় আমরা অন্যমনস্ক হয়ে খাই, তখন পেট ভরার পরও অনেকটা খাওয়া হয়ে যায়।

মন দিয়ে খাওয়া আপনাকে আরও কিছু খারাপ অভ্যাস থেকে দূরে রাখবে, যেমন খিদে না লাগলেও খাওয়া। এটি খুব বেশি হয় যখন কিছু করার থাকে না কিংবা মানসিক চাপ থাকে।

প্রতিবার খাওয়ার আগে নিজেকে জিজ্ঞেস করুন, ‘আমি কি আসলেই ক্ষুধার্ত?’

দেহকে সচল রাখুন

ব্যায়াম করার সময় পাচ্ছেন না? মনে রাখবেন, নিজের শরীরকে আলস্যের দাস বানালেন তো হেরে গেলেন।

সব সময় ব্যায়াম না করলেও চলবে। কেনাকাটা করার সময় গাড়িটা দূরে রেখে বাকি পথ হেঁটে যান, লিফটের বদলে সিঁড়ি ব্যবহার করুন, ঘর পরিষ্কার করুন, নাচানাচি করুন - দেহকে সচল রাখার সুযোগ পেলে তা হাতছাড়া করবেন না।

খাবারের উপর নিষেধাজ্ঞা নয়

নিষিদ্ধ জিনিসের প্রতি মানুষের আগ্রহ সহজাত। তাই কোনো খাবারকে নিষিদ্ধ করেছেন তো মরেছেন! ঐ খাবারটি খেতেই বেশি মন চাইবে।

শাকসবজি কিংবা ফলমূল, যাই খান না কেন মজা করে খান। স্বাস্থ্যের জন্য ভাল দেখে জোর করে খেলে তা কখনোই কাজে লাগবে না।

খাবারকে ভাগ করুন দু ভাগে, ‘প্রতিদিনের খাবার’ এবং ‘মাঝেমাঝে খাওয়ার খাবার’। চর্বিযুক্ত খাবারগুলো একেবারেই নিষিদ্ধ না করে মাঝেসাঝে খান, তবে অল্প পরিমাণে। অপরদিকে প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় রাখুন শাকসবজি, ফলমূল, বাদাম, দুধ ইত্যাদি।

নিজের প্রতি সহানুভূতিশীল হন

ওজন বেড়ে গেলে নিজেকে শাসন করা শুরু করবেন না। এই অনুশোচনার কারণে স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতিও হতে পারে। বরং আপনার কী ধরনের  স্বাস্থ্যকর কাজ করতে এবং খাবার খেতে ভাল লাগে, তার একটি তালিকা তৈরি করুন। সেই তালিকা অনুযায়ী চলুন।

সংখ্যার দিকে নয়, বরং নিজের শান্তির দিকে মন দিন। মনে রাখবেন, আমাদের সবার দৈহিক গঠন আলাদা। সবার শারীরিক চাহিদাও এক নয়। তাই অন্যকে দেখে নিজে অনুশোচনায় না ভুগে ভাল থাকার চেষ্টা করুন, ওজন এমনিতেই নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

 

৪৬০ বার পড়া হয়েছে সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬


৪৬০ বার পড়া হয়েছে


tonicadmin's picture

লিখেছেন টনিক

ভালো থাকতে ছোট বড় সব চেষ্টায় আপনার পাশে আছি আমরা। টনিক।

সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন

2ta mixed kore khaile ki kono somossa? tea r coffee mixed.. উত্তর দেখুন

star

Answered 12 hours ago by

Dr. Qamrun Ahmed MAkbool

Topic: Nutrition

i want to increase my body weight. i take my meal properly. my weight is not being increased. wha... উত্তর দেখুন

star

Answered 12 hours ago by

Dr. Dilara Maqbool

Topic: Nutrition

তেতুলের পানি কখন খাওয়া উপকার? উত্তর দেখুন

star

Answered 12 hours ago by

Dr. Md. Masrurul Huq Zunaeid

Topic: Nutrition

টনিক ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন

আজই টনিকের সকল সাধারণ ফিচার উপভোগ করুন

আপনার গ্রামীণফোন নাম্বারটি প্রদান করুন

০১৭ -

Top