বর্ষার মুখ রোচক পাঁচ খাবার

ভোজন রসিক বাঙালির খাবারের কোন শেষ নেই। ঋতু পরিবর্তনের সাথে সাথে পরিবর্তন হয় মুখের রুচিরও। বৃষ্টির দিন ঘরে বন্দী থাকতে থাকতে বিরক্ত হয়ে বিশেষ কিছু খাবার খেতে কে না চায়। ভোজন রসিকদের জন্যই আমাদের এবারের ফিচার বৃষ্টির দিনের খাবার।

১. ভুনা খিচুড়ি

আকাশে মেঘ ডাকলেই অনেকের পেটের মধ্যেও ডাকাডাকি শুরু হয়। বিশেষ একটা খাবারের জন্য মন আকুপাকু করে। বিশেষ সেই খাবারের নাম ভুনা খিচুড়ি। বাইরে ঝরঝরিয়ে বৃষ্টি হচ্ছে, এমন সময় খাবারের পাতে যদি কেউ গরম গরম খিচুড়ি তুলে দেয় তাহলে ভোজন রসিকদের আর কিছু চাওয়ার থাকে না। খিচুড়ির সাথে হালকা ঝোল, কয়েক টুকরো মাংস, একটা পেঁয়াজ, লেবু আর খানিকটা সালাদ। ব্যস! সামান্য আয়োজনেই উপভোগ করুণ ঘরে বসেই রেস্টুরেন্টে খাওয়ার ফিলিংস।

২. ইলিশ ভাজি

ইলিশ এমন একটা মাছ যেটা যে কোন সময় যে কোন পরিস্থিতিতেই খেতে ভালো লাগে। মাছ ভাতে বাঙালি হয়েও অনেকেই আছেন মাছ খেতে পারেন না বা খেতে চান না। তাদেরও যদি জিজ্ঞেস করা হয় তাহলে বলবে- মাছ খাই না ঠিক, তবে ইলিশ মাছ তো খাওয়াই যায়! একবার চিন্তা করুন তো, এই ইলিশ মাছ গরম তেলে ভাজা হচ্ছে। প্লেটে তুলে দেয়ার পর মাছের গা বেয়ে গরম তেল চুইয়ে চুইয়ে পড়ছে। বাইরে বাদল ধারা। উফ! আমার তো নিজেরই খেতে ইচ্ছে করছে। এই বর্ষায় ইলিশ শুধু ভাজি হিসেবেও অমৃত। তবে কেউ যদি ভুনা খিচুড়ির সাথে খান তাহলে স্বাদ বাড়বে বৈ কমবে না।

৩. মুরগির ঝাল ফ্রাই

মুরগির ফ্রাই কিংবা মুরগির ঝাল ফ্রাই অনেকেরই প্রিয় খাবার। আবার যারা ব্যাচেলর ফ্লাটে থাকে কিংবা মেস বাড়িতে থাকে তাদের অনেকের কাছেই মুরগি একটা বিভীষিকার নাম। প্রতিদিন দুপুরে এক টুকরো মুরগির মাংস খেতে খেতে দুঃস্বপ্নেও তারা মুরগির মাংস দেখে। তবে যদি সময় আর পরিস্থিতি বুঝে উপস্থাপন করা হয় তাহলে এই মুরগিই হয়ে ওঠে অমৃত। বৃষ্টির দিন মুরগির ঝাল ফ্রাই করুন কিংবা শুধু ফ্রাই। তারপর প্লেটে তুলে দিন। সাথে খিচুড়ি কি সাদা ভাত সেটা ব্যাপার না। কিছুক্ষণের মধ্যেই দেখবেন বৃষ্টির ফোঁটার টাপুর টুপুর আর মুরগির হাড় চিবানোর শব্দ মিলে একাকার হয়ে গেছে।

৪. গরুর কালা ভুনা

গরুর মাংস যারা খেতে পছন্দ করেন তাদেরকে কালা ভুনার সাথে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কিছু নেই। কালা ভুনা যে কোন সময়েই সুস্বাদু লাগে। তবে বৃষ্টির দিন যদি খাওয়া যায় তাহলে এর স্বাদ যেন ১০ গুণ বেড়ে যায়। ধোঁয়া ওঠা গরম গরম ভাত কিংবা খিচুড়ি সাথে কালা ভুনা থাকলে আর কি লাগে!

৫. মুড়ি চানাচুর

বন্ধুদের আড্ডায় অনেকেই ‘মুড়ি খা’ বলে। এক্ষেত্রে মুড়ি খা শব্দটা ব্যবহৃত হয় অন্যকে হেনস্থা করার জন্য। তবে যারা মুড়ি খা বলে মজা নেয় তাদেরকেই যদি বৃষ্টির দিন তেল মাখানো মুড়ি দেয়া হয় তাহলে আর কথা নেই। হেনস্থা ভুলে মুড়ির উপর আস্থা রাখতে বাধ্য হবে। বর্ষার দিনে দুপুরে তেল মাখানো মুড়ি, সাথে পেঁয়াজ আর মরিচ কাটা, আর যদি সামান্য বাদাম চানাচুর মিক্সড করা হয় তাহলে বৃষ্টির দিন আর বৃষ্টির থাকবে না, মুড়ির দিন হয়ে যাবে।




ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে: https://mytonic.com/bn/doctors  

৩৩১ বার পড়া হয়েছে আগস্ট ৩, ২০১৭


৩৩১ বার পড়া হয়েছে


agency_content's picture

লিখেছেন টনিক

ভালো থাকতে ছোট বড় সব চেষ্টায় আপনার পাশে আছি আমরা। টনিক।

সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন

উত্তর দেখুন
 
লোডিং...

টনিক ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন

আজই টনিকের সকল সাধারণ ফিচার উপভোগ করুন

আপনার গ্রামীণফোন নাম্বারটি প্রদান করুন

০১৭ -

Top