যারা ডায়েট করেন বা জিম করেন, তারা অনেকেই খাদ্যতালিকায় প্রোটিন বেশি রাখতে চান। মাসল বিল্ড করার জন্য এর প্রয়োজনও আছে। তাই অনেকেই মাংসের উপর ভরসা করেন। আবার কোরবানি ঈদের মৌসুমেও লাল মাংস খাওয়া হয় বেশি।

কিন্তু আমরা কি জানি তা শরীরের উপর কি প্রভাব ফেলছে?

লাল মাংস কি?

প্রথমে জানতে হবে লাল মাংস ও সাদা মাংসের পার্থক্য কি, কোনটি কোথা থেকে পাওয়া যায়।  লাল মাংস সাধারণত গবাদি পশু-প্রাণীগুলি থেকে পাওয়া যায়, যেমন:

  • গরু
  • ছাগল
  • ভেড়া
  • মহিষ
  • উট ইত্যাদি।

আর পোল্ট্রি এবং পাখি মাছের থেকে পাওয়া মাংসকে বলা হয় সাদা মাংস। সাদা মাংসের তুলনায় লাল মাংস স্বাস্থ্যের উপর বেশি নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

লাল মাংসের স্বাস্থ্য ঝুঁকি:

লাল মাংস খাওয়ার সাথে হার্টের রোগ, কোলোরক্টাল ক্যান্সার এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার সরাসরি সম্পর্ক আছে বলে গবেষকরা দাবি করেন। প্রক্রিয়াজাত (প্রসেসেড) লাল মাংস যেমন- সসেজ, পেপারোনি, বার্গার প্যাটি ইত্যাদি গ্রহণের ফলে ঝুঁকি আরো কয়েকগুন বেড়ে যায়।  বেশি লাল মাংস খাবার ফলে ব্লাড ভেসেলস নমনীয়তা হারায় যা রক্ত চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে।

এছাড়াও এই ৮টি রোগের কারণে মৃত্যুহার বাড়ার পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে অধিক হারে লাল মাংস খাওয়া :

  • ক্যান্সার
  • হৃদরোগ
  • শ্বাসযন্ত্রের রোগ,
  • স্ট্রোক
  • ডায়াবেটিস
  • অভ্যন্তরীণ ইনফেকশন্স,
  • কিডনি রোগ এবং
  • লিভার রোগ

লাল মাংসের পুষ্টিগুণন:

লাল মাংস যে শুধু ক্ষতি-ই করে তা নয়। লাল মাংসে প্রচুর প্রোটিন থাকে। এছাড়াও স্যাচুটেড ফ্যাট, আয়রন, জিংক  এবং ভিটামিন বি-এর উৎকৃষ্ট উৎস। যাদের বয়স কম, শারীরিক কোনো সমস্যা নেই এবং হজমেরও কোনো সমস্যা হয় না তাদের জন্য লাল মাংস খাওয়ায় কোনো বাধা নেই। তবে ভবিষ্যতে যেন বিভিন্ন অসুখ বিসুখ এড়িয়ে চলতে পারে তাই শুরু থেকেই সচেতন হয়ে পরিমিত পরিমাণে মাংস খেতে হবে।

কতটুকু লাল মাংস খাওয়া নিরাপদ:

পুষ্টিবিদগণ দিনে ৮৫ গ্রাম বা কম লাল মাংস খাওয়ার পরামর্শ দেয়। খাসি, ভেড়া বা গরুর মাংসের একটি পাতলা অংশে (আধা টুকরা  পাউরুটির সমান) ৩০ গ্রাম মাংস থাকে।

 
agency_content's picture
লিখেছেন
টনিক
Tonic is there to assist you no matter how big or small your problems may be