হজ্ব পালনের সময় ডায়াবেটিক ও অন্য রোগীদের করণীয়



হজ্ব পালন করা সৌভাগ্যের বিষয়। আল্লাহ যাকে ডাক দেন সেই হজ্বে যেতে পারে। কবুল হাজীরা শিশুর ন্যায় নিষ্পাপ হয়ে যায়। হজ্ব পালনের জন্য শারীরিক এবং মানসিক সুস্থতা একান্ত প্রয়োজন। হজ্বের প্রতিটি আনুষ্ঠানিকতা শ্রমসাধ্য ব্যাপার। পরিবর্তিত পরিস্থিতি, জীবনযাত্রার পরিবর্তন, ধর্মীয় আবেগ, অতিরিক্ত পরিশ্রম, আবহাওয়ার তারতম্য,  সব মিলে হাজীরা বিশেষ করে ডায়াবেটিক রোগীরা বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে পারেন। পানিশূন্যতা, সর্দিজ্বর, কাশি, শরীর ব্যথা, ডায়রিয়া এবং সুগার কম বেশি হতে পারে। পায়ে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। সাধারণ রোগ সম্পর্কে (ডায়রিয়া, সর্দিজ্বর মাথাব্যাথা, বমি, পেটে গ্যাস, আমাশয়, এবং বুকে ও প্রস্রাব এ ইনফেকশন) এবং এর নিরাময় এর জন্য ঔষধ সম্পর্কে কিছুটা ধারনা নিয়ে এবং অন্যান্য রোগীরা তাদের ডাক্তারের সঙ্গে রোগ সম্পর্কে আগে থেকে পরামর্শ করে প্রস্তুতি নিয়ে এই জটিলতা থেকে রেহাই পেতে পারেন।

রোগীদের হজ্ব পূর্ব প্রস্তুতি ঃ

  • আগে থেকে মুয়াল্লিম এবং ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে হজ্বের প্রস্তুতি নিন।

  • প্রতিদিন আধা ঘণ্টা হাঁটার অভ্যাস করুন।

  • ডায়াবেটিস এবং ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখুন। অন্যান্য রোগের চিকিৎসা নিন।

  • বিভিন্ন পরিস্থিতিতে সুগার এবং ব্লাড প্রেশার কন্ট্রোল এর ব্যাপার এ ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে হাতে কলমে শিক্ষা নিন। হাইপোগ্লাইসেমিয়া এবং সিক ডে ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে জেনে নিন।

  • প্রয়োজনীয় ঔষধ , ইনসুলিন, সিরিঞ্জ, গ্লুকোমিটার, তুলা, ডিপ্সটিক প্রভৃতি আলাদা প্লাস্টিক এর বাক্সে নিন।

  • সবসময় প্রেসক্রিপশন সাথে রাখবেন, ফটোকপি অন্য ব্যাগ এ রাখবেন।

  • গরম জায়গায় ইনসুলিন পানিতে রাখতে পারবেন, অথবা সরবরাহকারকদের কাছ থেকে পরামর্শ নিতে পারবেন।

হজ্বের সময় রোগীদের করনীয় ঃ

  • সবসময় কিছু খাবার (যেমন গ্লুকোজ, চিনি, বিস্কুট, খেজুর) সঙ্গে রাখবেন।

  • হাইপোগ্লাইসেমিয়া হলে কিভাবে চিকিৎসা করতে হবে তা সাথীদেরকে শিখাবেন।

  • পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি (জমজমের) খাবেন।

  • যারা ইনসুলিন (২-৩ বার) নিয়ে থাকেন তারা ইহরাম এর পূর্বেই গ্লুকোমিটার দিয়ে গ্লুকোজ ডিপ্সটিক দিয়ে প্রস্রাব এ কিটোন দেখে নিতে পারেন।

  • ইহরাম এর দিনগুলোতে প্রস্রাব এর সুগার দেখে ইনসুলিন ও ডায়াবেটিস এর ঔষধ ঠিক করতে পারবেন।

  • তাওয়াফ এর আগে, সা'ঈ এর আগে, কঙ্কর নিক্ষেপ এর আগে, কুরবানি এবং অপরাপর অতিরিক্ত পরিশ্রম এর জায়গাতে আগে কিছু খেয়ে নেয়া ভাল।

  • ঐসব পরিশ্রম এর দিনগুলিতে ইনসুলিন ২৫% কম নেয়া এবং সালফোনাইল ইউরিয়া গ্রুপ এর ঔষধ ২৫% কম খাওয়া ভাল।

  • অতিরিক্ত হাটাহাটি করার সময় পায়ের যত্ন নিতে হবে।

  • জমজমের নরমাল পানি বেশি বেশি করে পান করতে হবে।

  • যেকোনো জরুরি অবস্থায় হজ্ব মেডিকাল টিম এর শরণাপন্ন হবেন।

আল্লাহ্আমাদের হজ্ব কবুল করুন, -মীন


ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে: https://mytonic.com/bn/doctors  

 

১১২ বার পড়া হয়েছে আগস্ট ৬, ২০১৭


১১২ বার পড়া হয়েছে


agency_content's picture

লিখেছেন টনিক

ভালো থাকতে ছোট বড় সব চেষ্টায় আপনার পাশে আছি আমরা। টনিক।

সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন

উত্তর দেখুন
 
লোডিং...

টনিক ফ্রি সাবস্ক্রাইব করুন

আজই টনিকের সকল সাধারণ ফিচার উপভোগ করুন

আপনার গ্রামীণফোন নাম্বারটি প্রদান করুন

০১৭ -

Top