বন্ধু আনিকার সাথে অনেক দিন পর দেখা তনয়ের। অনেক দিন পরে দেখা হয়ে ভালো লাগছে। দুজনেই একটা রেস্টুরেন্টে গিয়ে বসলো। গল্প করছে। কিছুক্ষণ পরেই তনয় খেয়াল করলো আনিকার মুড অফ। তনয় জিজ্ঞেস করলো- কোন সমস্যা?

-না রে, শরীরটা ভালো লাগছে না।

-ডাক্তার দেখাস নি?

-না, আমার ডাক্তারের চেম্বারে যেতে ভালো লাগে না।

-তাহলে ফোনে কথা বল। সাজেশন নে।

-তনয় তুই বুঝতে পারছিস না, আমার আসলে রোগ নিয়ে কারো সাথেই কথা বলতে ইচ্ছে করে না।

-কথা না বললে চিকিৎসা হবে কিভাবে? সুস্থ হতে হবে না?

-জানি না। বলে আনিকা দীর্ঘশ্বাস ছাড়ে।

তনয় তখন আনিকার ফোন থেকে টনিকের সাইটে গিয়ে ডাক্তার চ্যাট অপশন বের করে। আনিকার সামনে ফোন এগিয়ে দিয়ে বলে- এই নে তোর ডাক্তার। কথা বলতে হবে না। চ্যাট কর। তুই তোর সমস্যার কথা বললে ওপাশ থেকে মেসেজে উত্তর দেবেন ডাক্তার।

আনিকা খুশি হয়। অবাকও হয়। বলে- কিভাবে করলি? আমার ফোনে তো ব্যালেন্সও ছিল না।

তনয় তখন আনিকাকে জানালো- টনিক সাত দিনের জন্য ফ্রি ট্রায়ালের ব্যবস্থা করে দিয়েছে। ফ্রিতে ডাক্তারের সাথে চ্যাট করতে পারবি, যে কোন সমস্যা নিয়ে।

আনিকা হাসি মুখে তনয়কে ধন্যবাদ দেয়, পাশাপাশি দীর্ঘদিনের সমস্যা দূর হওয়ার খুশিতে রেস্টুরেন্টের বিলও পরিশোধ করে!


agency_content's picture
লিখেছেন
টনিক
Tonic is there to assist you no matter how big or small your problems may be