ত্বকের যত্নে ছেলে বা মেয়ে যেকেউই কম বেশি সচেতন থাকে। ত্বকের সংবেদনশীলতার জন্য কসমেটিক্স দ্রব্যের নানা রাসায়নিক উপাদান অনেকসময় ঠিকমত ত্বকের সাথে মানিয়ে নিতে পারে না। তাই প্রাকৃতিক উপাদানগুলো ত্বকের পরিচর্যায় ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। নানা ধরণের প্রাকৃতিক উপাদান যা ত্বককে সতেজ, প্রাণবন্ত রাখতে সহায়তা করে জেনে নিই এমন কিছু উপাদান।

অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরার রস ত্বকের ডার্কস্পট দূর করতে সাহায্য করে, পোড়া স্থানের দাগ কমাতেও ভালো কাজ করে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতেও সহায়ক এই অ্যালোভেরা।

বেকিং সোডা

ত্বক পরিষ্কার ও নতুন কোষের বৃদ্ধিতে সহায়ক বেকিং সোডা সরাসরি ব্যবহার না করে স্ক্রাব বা মাস্ক হিসেবে ব্যবহার করা উচিত। সমপরিমাণ বেকিং সোডা সমপরিমাণ অলিভ অয়েলের সাথে মিশিয়ে নিয়ে ক্লিনজিং স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা যায়। এছাড়া মাস্ক হিসেবে ব্যবহারের জিন্য এক চামচ বেকিং সোডাকে এক চামচ ইয়োগারটের সাথে মিশিয়ে ১০ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখুন।

শসা

শসাকে গোল গোল স্লাইস করে কেটে ১৫ মিনিট মুখে লাগিয়ে রাখুন। ব্রণ, ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখতে শসার মাস্ক বেশ উপকারি।

মধু

বিভিন্ন খনিজ ও অন্যন্য জৈব উপাদানে ভরপুর হওয়ার কারণে মধুকে কার্যকরী ময়েশ্চারাইজার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ত্বকের ভাঁজ, বয়সের ছাপ দূরীকরণেও মধুর ব্যবহার প্রচলিত। তবে অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে মধু ব্যবহার না করাই উত্তম।

অলিভ অয়েল

ত্বক নরম, সতেজ ও ত্বকের কোমলতা বজায় রেখে শুষ্কতা দূর করতে অলিভ অয়েলের বিকল্প নেই। সকালে ও সন্ধ্যায় প্রাত্যহিক লোশনের বদলে অলিভ অয়েল ব্যবহার করা যায়। রিংকেল দূর করতেও এটি ভালো কাজে দেয়। প্রতিদিনের ফেস মাস্ক বা ক্রিমের সাথে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন।

চিনি

শুনতে অবাক লাগলেও হাতের কাছে থাকা চিনিও একধরণের স্ক্রাবিং উপাদান যা মৃত কোষকে দূর করতে সাহায্য করে। ত্বককে করে কোমল, বাড়ায় উজ্জ্বলতা। মুখ ধুয়ে তাতে চিনি দিয়ে সপ্তাহে একবার স্ক্রাব করুন আর দেখুন ফলাফল।

টমেটো

নিষ্প্রাণ হয়ে পড়া ত্বকে টমেটো স্লাইস করে ২০ মিনিট প্রয়োগ করুন। এতে ত্বক হবে সতেজ, ময়েশ্চারও বৃদ্ধি পাবে। তাছাড়া ত্বকের কোন প্রদাহজনিত সমস্যা থাকলে তাতে টমেটোর রস প্রয়োগ করলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

লেবু

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি, বয়সের দাগ বা ব্রণের বিরুদ্ধে লেবু ভালো কাজ করে। লেবুর রসকে টোনিং লোশন হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

আলু

তারুণ্যদীপ্ত ত্বকের জন্য আলু হতে পারে আপনার রূপচর্চার সঙ্গী। প্রতিদিন ১৫ মিনিটের জন্য আলু মাস্ক হিসেবে ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন, এক্ষেত্রে সরাসরি স্লাইস বা রস ব্যবহার করতে পারেন। এর সাথে অল্প একটু লেবুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন।

নারিকেল তেল

অশোধিত নারিকেল এর তেল নানা অর্গানিক উপাদান খুব দ্রুতই ত্বককে সতেজ, প্রাণবন্ত ও ময়েশ্চারাইজ করার ফলাফল দেয়। ত্বককে টানটান করে তোলার পাশাপাশি সতেজ ও তরুণ করে তোলে।

agency_content's picture
লিখেছেন
টনিক
Tonic is there to assist you no matter how big or small your problems may be