টনিক সম্পর্কে

 

টেলিনর হেলথ: স্বাস্থ্যের ডিজিটাল সদর দরজা

টেলিনর হেলথ(Telenor Health) স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের উদ্দেশ্যে একটি ডিজিটাল সহায়ক। ২০১৫ সালে টেলিনর হেলথ প্রতিষ্ঠা করে যা বিভিন্ন স্বাস্থ্য চাহিদা পূরণ এবং এনসিডি(NCD) অ্যাড্রেসিং এর পথে যুগান্তকারী প্রথম পদক্ষেপ। এই প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য হচ্ছে টেলিনর গ্রুপের বর্ধিতায়নের মাধ্যমে ভিশন(vision: “empowering societies”) বাস্তবায়ন করা এবং প্রযুক্তির উন্নয়নকে কাজে লাগিয়ে সবসময় মানুষ ও মানবজীবনের উন্নয়ণের কাজ করে যাওয়ার মাধ্যমে এশিয়া মহাদেশের প্রতি উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিকে আরেক ধাপ বাস্তবায়নের রূপ ও আকার প্রদান করা।

আমরা বিশ্বাস করি বাংলাদেশীরা বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা পাওয়ার অধিকার রাখে। আর তাই বিশ্বমানের ক্লিনিকাল কোয়ালিটির সেবা প্রদান এবং এর উন্নত ও কার্যকরী স্বাস্থ্যসেবা সর্বসাধারণের নাগালের মধ্যে নিয়ে আসাটাই টেলিনর হেলথের মূল মন্ত্র ও সার্বিক উদ্দেশ্য।

টেলিনর হেলথের মতে প্রযুক্তি এখন মানুষের হাতের মুঠোয়।আর এই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে প্রযুক্তির মাধ্যমেই যদি মানুষের কাছে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়া যায় তাহলে খুব সহজেই সমাজের সকল স্তরের মানুষকে বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা সম্ভব হবে। আর এই চিন্তাধারার কার্যকরী প্রয়োগ হচ্ছে টনিক(Tonic) । প্রতিরোধ-প্রতিকার ভিত্তিক ডিজিটাল কন্টেন্ট, টেলিফোন ভিত্তিক প্রাথমিক সেবা,ফার্মেসি ও হাসপাতালে আর্থিক সেবা,ডিস্কাউন্ট সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে টনিক বর্তমানে Universal Health Coverage (UHC) এর গেটওয়ে হিসেবে কাজ করছে এবং এর সদস্য ও তাদের পরিবারের সকলের সুস্বাস্থ্য ও উন্নত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতের জন্য নিরলস কাজ করে যাচ্ছে।

এই মেম্বারশীপের মধ্যে যা যা রয়েছে তা হচ্ছে -

  • স্বাস্থ্য পরামর্শঃ সুস্থ জীবন ও সুন্দর জীবন যাপনের জন্য নানা কার্যকরী টিপস এসএমএস, ওয়েব কন্টেন্ট, এবং ফেসবুকের মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়। এবং উত্তরোত্তর এইসব সুবিধা আরো বাড়ানো হবে।
  • টনিক ডাক্তারঃ যেকোনো প্রয়োজনে যেকোনো সময় স্বাস্থ্য জিজ্ঞাসায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ ও অভিজ্ঞ ডাক্তার ২৪ ঘন্টাই নিবেদিতপ্রাণে নিয়োজিত আছেন। ফোন কলের মাধ্যমে প্রতি মিনিট মাত্র ৫ টাকায় সপ্তাহের যেকোনো দিন, যেকোনো সময় এখন স্বাস্থ্যসেবা পাওয়া সম্ভব।  
  • টনিক ডিস্কাউন্টঃ একজন টনিক মেম্বার সারা দেশের ২০০ টিরও বেশি জনপ্রিয় আধুনিক ফার্মেসি, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও  হাসপাতালে বেড ভাড়া, বিভিন্ন টেস্টে ৫০% আকর্ষণীয় ছাড় উপভোগ করতে পারবেন।
  • টনিক ক্যাশঃ ৩ রাত বা তারও বেশি সময় ধরে হাসপাতালে ভর্তি থাকলে টনিক মেম্বার ১০০০ টাকা ছাড় উপভোগ করতে পারবেন এবং এবং মোবাইল ব্যাংকিং ওয়ালেটের মাধ্যমে বিল পরিশোধ করতে পারবেন।এই সুবিধা একজন টনিক মেম্বার বছরে ৪ বার পর্যন্ত পেতে পারবেন।
  • টনিক মোবাইল অ্যাপঃ টনিক অ্যাপের মাধ্যমে টনিক ডিসকাউন্ট, টনিক ক্যাশ, টনিক ডাক্তার, টনিক জীবন সহ সকল সুবিধা ও নিয়মিত আপডেট যেকোনো সময় আপনি পেয়ে জাবেন আপনার হাতের মুঠোয়।

টনিক মেম্বার হওয়ার জন্য যা লাগবেঃ

টেলিনর হেলথ গ্রামীনফোনের সাথে একযোগে কাজ করছে। গ্রামীনফোনের ৫৭ মিলিয়ন গ্রাহক বিনামূল্যে টনিকের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। এছাড়াও ৭৮৯ নাম্বারে ডায়াল করে টনিকে যোগ দিতে পারেন। টনিকের সদস্য হিসেবে থাকার জন্য এবং একজন সদস্য হিসেবে এই সকল চমৎকার সুবিধা পেতে চাইলে আপনাকে শুধু আপনার গ্রামীনফোন সিম থেকে মাসে একবার একটি কল, একটি এসএমএস বা ওয়েবে ব্রাউজ করলেই হবে।